fbpx
Monday, April 22, 2024
spot_imgspot_img
HomeInfoBangladeshBangladesh traffic rule: কখনো কি ভেবে দেখেছেন বাংলাদেশের ট্র্যাফিক চলাচল কেন বাম...

Bangladesh traffic rule: কখনো কি ভেবে দেখেছেন বাংলাদেশের ট্র্যাফিক চলাচল কেন বাম দিকে?

রাস্তা দিয়ে চলার সময় আপনি কি কখনো খেয়াল করেছেন আমাদের দেশে কোন ধরনের traffic ব্যবস্থা চালু আছে? আর কখনো কি এটা ভেবে দেখেছেন, আমেরিকা ও  ইউরোপের বেশিরভাগ দেশে ডানহাতি ট্র্যাফিক ব্যবস্থা চালু থাকলেও আমরা কেন বাঁ হাতে ট্র্যাফিক ব্যবস্থায় চলাচল করি?

এসব প্রশ্নের উত্তর জানাবো আজকে.. 

বর্তমানে পুরো বিশ্বের মাত্র ৩৫ শতাংশ দেশে হাতের বাম দিক দিয়ে গাড়ি চালানোর নিয়ম মেনে চলে। বামে গাড়ি চালানো দেখা যায় মূলত ইংল্যান্ড, ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ সহ আরো কয়েকটি দেশে। ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলো ডান দিক দিয়ে গাড়ি চালানোর নিয়ম মেনে চললেও ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, সাইপ্রাস, মাল্টা এর বিপরীত। এ ছাড়াও আমেরিকা এবং আফ্রিকা মহাদেশের অধিকাংশ দেশেই একই নিয়ম দেখা যায়।

বাম দিকে চালিত অঞ্চল এবং দেশ

বাম দিকের traffic মেনে চলে যেসব দেশ ও অঞ্চল

ওশেনিয়া অঞ্চল (Oceania)

অস্ট্রেলিয়া, ক্রিসমাস দ্বীপ, কোকোস (কিলিং) দ্বীপপুঞ্জ, কুক দ্বীপপুঞ্জ, ফিজি, কিরিবাতি, নাউরু, নিউজিল্যান্ড, নিউ, নরফোক দ্বীপ, পাপুয়া নিউ গিনি, পিটকের্ন দ্বীপপুঞ্জ, সলোমন দ্বীপপুঞ্জ, টোকেলাউ, টোঙ্গা, টুভালু, এশিয়া, বাংলাদেশ, ভুটান ব্রুনাই, পূর্ব তিমুর, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, ভারত, জাপান, ম্যাকাও, মালয়েশিয়া, নেপাল, পাকিস্তান, সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড

আফ্রিকা (Africa)

বতসোয়ানা, কেনিয়া, লেসোথো, মালাউই, মরিশাস, মোজাম্বিক, নামিবিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, সোয়াজিল্যান্ড, তানজানিয়া, উগান্ডা, জাম্বিয়া, জিম্বাবুয়ে, ইউরোপ, আকরোটিরি এবং ঢেকেলিয়া, সাইপ্রাস, গার্নসি, আয়ারল্যান্ড, আইল অফ ম্যান, জার্সি, মাল্টা, যুক্তরাজ্য দক্ষিণ আমেরিকা, গায়ানা, সুরিনাম

ক্যারিবিয়ান (Caribbean) 

অ্যাঙ্গুইলা, অ্যান্টিগুয়া এবং বার্বাডোস, বাহামা, বার্বাডোস, ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ, কেম্যান দ্বীপপুঞ্জ, ডোমিনিকা, গ্রেনাডা, জ্যামাইকা, মন্টসেরাট, সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস, সেন্ট লুসিয়া, সেন্ট ভিনসেন্ট অ্যান্ড দ্য গ্রেনাডাইনস, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো, তুর্কস অ্যান্ড কাইকোস দ্বীপপুঞ্জ, ইউএস ভিআরজিন। দ্বীপপুঞ্জ।

অন্যান্য দ্বীপপুঞ্জ (Other Islands)

বারমুডা, ফকল্যান্ড দ্বীপপুঞ্জ, মালদ্বীপ, সেন্ট হেলেনা, অ্যাসেনশন, এবং ট্রিস্তান ডি কুনহা, সেশেলস, দক্ষিণ জর্জিয়া এবং দক্ষিণ স্যান্ডউইচ দ্বীপপুঞ্জ

একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে পৃথিবীর মোট জনসংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশ (১৬৩ টি দেশ এবং অঞ্চল) ডানদিকের (আরএইচটি) ট্র্যাফিক পদ্ধতি মেনে চলে। বাকি ৭৬টি দেশ এবং অঞ্চলগুলো বামদিকের (LHT) ট্র্যাফিক পদ্ধতি মেনে চলে।

ট্রাইফ আইনের ইতিহাস:

ধারণা করা হয় traffic ব্যবস্থার ডান-বামে চলার প্রচলন শুরু হয় রোমান আমল থেকে। রাস্তায় চলাচলের এই নিয়মের প্রথম প্রত্নতাত্ত্বিক প্রমাণ পাওয়া গেছে রোমান সম্রাজ্যে। প্রাচীনকালে প্রায় সবখানেই হাতের “বামে চলার” নিয়ম চালু ছিল।. 

রোমান সাম্রাজ্যকে আধুনিক সাম্রাজ্য বলা হত যোগাযোগের উন্নয়নের জন্য। তখন পুরো ইউরোপ জুড়েই ছিল সুপ্রশস্ত রাস্তাঘাট। এই সব রাস্তায় মাল ও যাত্রীবাহী বাহনের ছিল বিপুল সমাহার। এ কারণে তাদের এমন কিছু নীতিমালার বাস্তবায়নের প্রয়োজন ছিল যাতে রাস্তায় মানুষ এবং যানবাহন চলার সুষ্ঠু ব্যবস্থা থাকে। 

প্রত্নতাত্ত্বিকগণ যে প্রমাণ পেয়েছিলেন তা রোমানদের রাস্তার বাম দিক দিয়ে চলাটাই নির্দেশ করে। কিন্তু সঠিকভাবে জানা যায় নি, কেন তারা বাম দিকটাই বেছে নিয়েছিলেন। তবে নিশ্চিতভাবে বলা যায়, তাদের এই নিয়মটাই মধ্যযুগ পর্যন্ত সব জায়গায় চালু ছিল।

প্রাচীন রোমানরা কেন বাম দিকে গাড়ি চালাত তা ইতিহাসের পাতা থেকে কিছুটা জানা যায়:

ঘোড়া নিয়ন্ত্রণ 

প্রাচীন রোমের রাস্তা
প্রাচীন রোমের রাস্তা

একজন ডানহাতি চালক সবার বামে যে ঘোড়া থাকতো, তার উপর বসতো। চালক তার বাম হাতে ঘোড়ার লাগাম এবং ডান হাতে চাবুক নিয়ে একসাথে সবগুলো ঘোড়াকেই নিয়ন্ত্রণ করতো। দ্বিমুখী ট্রাফিকের মধ্যে রাস্তার বাম দিকে গাড়ি চালানোর সুবিধা এবং চাবুক ব্যবহার করে আগত ঘোড়াকে আঘাত করে নিয়ন্ত্রণ করতো।

চলাচলের সুবিধার্থে

পিছন বা সামনের দিক থেকে আগত ওয়াগনগুলিতে নজর রাখা সহজ। তাছাড়া মালামাল ও যাত্রী পরিবহণে তারা বাম পাশটাই ব্যবহার করতেন।

যুদ্ধের সুবিধার্থে 

রোমানরা অধিকাংশ ডান হাতি হওয়ার কারণে তাদের অস্ত্র বামদিকে রাখতো। ফলে সহজেই অস্ত্র বের করে  ডান দিক থেকে আগত শত্রুদের মোকাবেলা করতে সুবিধা হতো। তাছাড়া নিজেদের বহন করা অস্ত্রগুলো শরীরের বাম পাশে খাপের মধ্যে রাখা হত। যুদ্ধের সময় অশ্বারোহী তাদের বাম হাতে ঘোরার লাগাম ধরে ডান হাতে অস্ত্র ব্যবহার করে  প্রতিপক্ষের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত হতেন।  তাই বাম দিকে ট্র্যাফিক ব্যবস্থায় তাদের জন্য সুবিধা হতো। 

বিপরীত দিক থেকে আগত বাহনের চালকের সাথে যোগাযোগের সুবিধার্থে

Left-Hand Driving হওয়ার কারণে চালক সব সময় ডান দিকে বসতো। এর ফলে বিপরীত দিক থেকে যে সব যানবাহন আসতো এদের চালকের সাথে যোগাযোগ করা সহজ হতো।

প্রাচীন রোম বাঁ-দিক অনুসরণ করলেও আধুনিক রোম ডানদিকে ড্রাইভ করে।

যুদ্ধক্ষেত্র: রোম
যুদ্ধক্ষেত্র: রোম

১৮ শতাব্দীতে আমেরিকায় সর্বপ্রথম ডানে চলার উৎসটি খুঁজে পাওয়া যায়। সে সময় আমেরিকায় বড় বড় মালবাহী ঘোড়ার গাড়ির প্রচলন ছিল। যেহেতু গাড়িগুলো আকার বড় ছিল, তাই রাস্তাগুলোয় এদের দাপট বেশি ছিল। এই কারণে বাকি সব গাড়ি এদের চলার নিয়ম অনুযায়ী নিজেদের মানিয়ে নিতে বাধ্য হতো।

এই গাড়িগুলোর বৈশিষ্ট্য ছিল, প্রতিটা গাড়ির সাথেই ৪-৬ টি ঘোড়া যুক্ত থাকতো। তবে চালকের বসার জন্য কোন নির্দিষ্ট আসন ছিল না। এর ফলে একজন ডানহাতি চালক সবার বামে যে ঘোড়া থাকতো, তার উপর বসতো। আর ডান হাতে একটা চাবুক নিয়ে একসাথে সবগুলো ঘোড়াকেই নিয়ন্ত্রণ করতো। 

এদিক দিয়ে ইংল্যান্ড আবার সম্পূর্ণ বিপরীত ছিল। আমেরিকানদের ডান দিক দিয়ে চলার পেছনে এই যে বড় বড় মালবাহী গাড়িগুলোর অবদান রয়েছে সেগুলো কিন্তু তেমন সুবিধাই করতে পারেনি ইংল্যান্ডে।

কারণ লন্ডনের রাস্তাগুলো ছিল সরু, এবং এ ধরনের গাড়ি চলার জন্য ছিল অনুপযুক্ত। তার সাথে ইংল্যান্ড কখনোই নেপোলিয়ন বা জার্মানির অধীনে ছিল না। তাই তারা তাদের শত বছরের পুরোনো “বামে চলার” নিয়মটাই মেনে চলেছে। 

ইউরোপীয়দের মধ্যে ১০০ বছরের বেশি সময় ধরে Right-Left Driving সংশোধন করা হয়েছে। এখন মাত্র চারটি ইউরোপীয় দেশে Left-Hand Driving চালু রয়েছে। যেহেতু পৃথিবীর বেশির ভাগ অঞ্চলেই ব্রিটিশদের রাজত্ব ছিল, তাই এই নিয়মটি বিশ্বের অধিকাংশ দেশে এখনও প্রচলিত রয়েছে। 

১৩০০ খ্রিস্টাব্দে, পোপ বোনিফেস অষ্টম আদেশ দিয়েছিল যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে রোমে আসা লোকেরা তাদের ভ্রমণের সময় রাস্তায় বামে চলার নিয়মটি অনুসরণ করতে হবে। এর পরে, সপ্তদশ শতাব্দীর শেষে, প্রায় সমস্ত পশ্চিমা দেশগুলিতে রাস্তায় চলার এ নিয়মই অনুসরণ করা হয়েছিল।

১৭৫৬ সালে এটাকেই আইন হিসেবে জারি করে ব্রিটেন। তারপর যত ব্রিটিশ সাম্রাজ্য বিস্তার করতে শুরু করে পুরো বিশ্বে তত এই “বামে চলার” রীতির প্রসার হতে থাকে। তবে জার্মানির প্রসার লাভের সাথে সাথে “ডানে চলার” রীতির জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। যে কারণে ব্রিটেনের অধীনে থাকা অনেক দেশেই “বামে চলা” রীতির প্রচলন উঠে যায়। তবে এখনো এশিয়া মহাদেশের কিছু দেশে রাস্তার বাম দিয়ে চলার রীতি চালু আছে।

আকাশ, সমুদ্র, রেলপথের ক্ষেত্রে

অনেক দেশ আবার সড়ক পথে একরকম এবং নদী ও সমুদ্র পথে অন্যরকম পদ্ধতি অনুসরণ করে। সাধারণত “সি কোলিসন” এড়ানোর জন্য অনেক দেশে সমুদ্র পথে ডানদিকের ট্র্যাফিক পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়। আন্তর্জাতিক নিয়মও তাই। একই ব্যাপার আকাশপথের ক্ষেত্রেও। যুক্তরাষ্ট্রের মিলিটারিরা তাই এয়ার্ক্রাফট সবসময় বায়ু এবং সমুদ্রের উভয়ের ডানদিকে চলাচল করতে বলে। 

আবার অনেক দেশে যানবাহন ডানদিকগামী হলেও রেল বামদিকের হয় অথবা যান চলাচল বামদিকগামী হলে রেল চলাচল ডানদিকগামী হয়। চায়না এই পদ্ধতি অনুসরণ করে। তাদের এইরকম করার পিছনে আবার তেমন কোনো বিশেষ কারণ নেই। তবে এখনও বেশির ভাগ দেশে বামদিকগামী ট্র্যাফিক পদ্ধতিই বেশি সমাদৃত। কারণ মানুষ যখন চলাচল করে তখন তাদের মস্তিষ্কের ডানভাগ বেশি সচল থাকে। তাই বামদিকে ট্র্যাফিক চলাচলই বেশি নিরাপদ।

লেফট হ্যান্ড ড্রাইভের সুবিধা

বাম হাতের চালিত যানবাহনগুলো প্রধানত সেসব দেশে ব্যবহৃত হয় যেখানে রাস্তার ডান দিকে গাড়ি চালানো নিয়ম। বাম হাতের ড্রাইভ গাড়ি বেছে নেওয়ার কিছু সুবিধা রয়েছে

Enhanced Visibility and Safety: বর্ধিত দৃশ্যমানতা এবং নিরাপত্তা:

এসব যানবাহনে, চালক রাস্তার কেন্দ্ররেখার কাছাকাছি বসেন, যা সামনে থেকে আসা traffic এবং রাস্তার অবস্থা আরও ভালো করে দেখা যায়। বিশেষ করে ওভারটেকিং এবং ম্যানুভারিংয়ের সময় সাহায্য করে।

Wider Availability: (বিস্সৃত পরিসর)

লেফট হ্যান্ড ড্রাইভের যানবাহন সাধারণত বেশি পরিমাণে তৈরি হয় এবং মডেল সংখ্যাও অধিক। এর ফলে অনেক মডেলের মধ্যে থেকে আপনার প্রয়োজন অনুসারে পছন্দের গাড়িটি সহজেই বেছে নিতে পারেন।

পুনবিক্রয় মূল্য (Resale Value) 

যে-সব অঞ্চলে বাম হাতের ড্রাইভ প্রচলিত, সেখানে এসকল যানবাহনের পুনবিক্রয় চাহিদাও অনেক বেশি থাকে। যদি ভবিষ্যতে আপনার গাড়ি বিক্রি করতে বা ব্যবসা করার পরিকল্পনা করেন তবে এটি গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা হতে পারে।

রাইট হ্যান্ড ড্রাইভের সুবিধা (Advantages of Right Hand Drive)

বাম হাতে গাড়ি চালানোর মতো ডান হাতেও অনেকটা স্বাভাবিক যেখানে এ ধরনের নিয়ম প্রচলিত আছে। আসুন ডান হ্যান্ড ড্রাইভ গাড়ি বেছে নেওয়ার কিছু সুবিধা জেনে নেই

পরিচিতি (Familiarity)

আপনি যদি ডান হাতি হয়ে থাকেন তাহলে RHD  আপনার জন্য বিশেষ সুবিধা পাবেন। এক্ষেত্রে গাড়ি নিয়ন্ত্রণের বিভিন্ন সরঞ্জামের অবস্থান, যেমন গিয়ারশিফ্ট এবং ইন্ডিকেটর, ইত্যাদি ব্যবহার করতে চালকের বেশ সুবিধা হয় যদি তিনি ডানহাতি হন।

সহজ সড়ক যোগাযোগ (Easier Road Communication) 

ডান হাতে চালিত যানবাহনে, চালককে রাস্তার ধারের কাছাকাছি অবস্থান করতে হয়, যা পথচারী, সাইকেল চালক এবং অন্যান্য রাস্তা ব্যবহারকারীদের সাথে সহজ যোগাযোগের সুবিধা হয়।

আমদানি বাজারে প্রবেশ সহজ (Access to Import Markets) 

আপনার দেশের উপর নির্ভর করে,  ডান হাতি ড্রাইভ গাড়ি বেছে নেওয়ার ফলে RHD প্রচলিত দেশগুলি থেকে অনন্য মডেল আমদানি করার সম্ভাবনা আরো উন্মুক্ত হতে পারে। এটি বিশেষ করে গাড়ি উৎসাহীদের জন্য বিশেষভাবে লোভনীয় হতে পারে যারা ব্যতিক্রম মডেলের গাড়ি সংগ্রহে রাখেন।

পরিশেষে বলা যায়, প্রাচীনকালে এভাবেই কিছু সাধারণ নীতির মাধ্যমে ট্রাফিকের নিয়ম গুলো পালন করা হতো। তবে আধুনিক সমাজে উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে যানবাহন ও মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা চালু আছে। এমনকি কোন কোন ক্ষেত্রে স্যাটেলাইট ব্যবহার করেও এসব গাড়ি অবস্থান নির্ণয় ও নিয়ন্ত্রণ করা হয়। আর AI প্রযুক্তি আসার পর থেকে অনেক উন্নত শহরে মনুষ্যবিহীন যানবাহন চলাচল করতে দেখা যায়।

সহযোগিতায়
ইরফান হোসেন

আরও দেখুন

আপনার প্রিয় বাইকের জন্য কোনটা ভালো petrol নাকি octane?

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

Elliana Murray on ONLINE SHOPPING
Discover phone number owner on Fake app চেনার উপায়